1. admin@ammarpluspnewschannel.com : admin :
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশিয়ানীর পোনা আরাবিয়া মাদ্রাসার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে পূণর্মিলনী ও ইসলামী মহা সম্মেলন ৭ বছর পর কাশিয়ানী আ.লীগের সম্মেলন, নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ গোপালগঞ্জে কাশিয়ানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক ইউপি সদস্য নিহত কাশিয়ানীর সাজাইলে ইউনিয়নে লাভলু মৃধার আলোচনা সভা জাতীয় পার্টির রাজনীতিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে থামানো যাবেনা – মিন্টু গোপালগঞ্জে সাংবাদিক সংগঠন রিপোর্টার্স ফোরামের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন কাশিয়ানীতে মুক্তিযোদ্ধা বাবা ও ছেলেকে মারধর সেতুর অভাবে চরম দুর্ভোগে ১০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ইডেনে তিশার সঙ্গে ছবি তুলতে শিক্ষার্থীদের ভিড় এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের অসীমের শুভেচ্ছা

গোপালগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার বাদীকে মামলা তুলে নিতে হুমকি

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট, ২০২২

 

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

গোপালগঞ্জে ধর্ষণ চেষ্টা মামলার বাদীকে মামলা তুলে নিতে হুমকি ধামকি সহ ভিকটিমের নামে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সাবেক ২০নং গোবরা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড, বর্তমান (গোপালগঞ্জ পৌরসভার ১৫ নং ওয়ার্ড) এর গোবরা নিলামাঠ মুন্সী বাড়ি মোড় এলাকায়। ধর্ষণ চেষ্টা কারী ওই এলাকার মৃত মজিবর রহমান শেখের ছেলে আরিফ শেখ।

আরিফ ওই এলাকার দুশ্চরিত্র, নারী লোভী ও লাঠিয়াল প্রকৃতির ব্যক্তি। তার ভয়ে এলাকার কেউই প্রকাশ্যে কিছু বলতে চায়না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যক্তি জানিয়েছে এর পূর্বেও নারী লোভী আরিফ এলাকায় একাধিক নারীদের জোর করে সিল্যতাহানী ও ধর্ষণ করেছে। সম্মান হারানোর ভয়ে কোন নারী মুখ খোলেনি।

সরেজমিনে গিয়ে ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হওয়া গৃহবধূ লায়লা বেগম, স্বামী সাহিদুর রহমান, ভাবী পপি বেগম সহ এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হওয়া ওই গৃহবধূর পরিবার দরিদ্র ও দূর্বল হওয়ায় ধর্ষণ চেষ্টা কারি আরিফ শেখ ও তার নানা শশুর বাড়ীর লোকজন হায়াত শেখ ও রনি কাজী হুমকি ধামকি দিয়ে মামলার সত্যতা নাই মর্মে শিকারোক্তি দিয়ে মামলা তুলে নেওয়ার চাপ প্রয়োগ করে আসছে। বাদী মামলা তুলে না নেওয়ায় ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হওয়া নারীর চরিত্র ও তার পরিবারের সদস্যদের নামে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে।

এবিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য অফিসার জিল্লুর রহমান রিগান বলেন, আমি উভয় পক্ষকে নোটিশের মাধ্যমে গত (১১আগষ্ট) ঠেকে ছিলাম, গোপনে এবং প্রকাশ্যে তদন্ত চলছে। সঠিক ঘটনা উদঘাটন করে‌ দ্রুত তম সময়ের মধ্যে আদালতে রিপোর্ট দাখিল করব।

উল্লেখ্য, গত ২৩ জুলাই (শনিবার) ২০২২ তারিখে বিকাল ৪ টা ৩০ মিনিটের সময় ধর্ষন চেষ্টার শিকার হওয়া নারী ও মামলার বাদী লায়লা বেগমের বসত বাড়ীর সামনে বাদীর স্বামীর মালিকানাধীন দোকানের মধ্যে স্যান্ডেল ক্রয় করার কথা বলে প্রবেশ করে। ধর্ষণ চেষ্টার আসামি আরিফ শেখ তার কাছে লুকিয়ে রাখা চাকু বের করে লায়লা বেগম কে ভয় দেখিয়ে ওরনা দিয়ে মুখ বেঁধে ফেলে এবং লায়লা বেগমের পরিহিত পোশাক জোর করে টেনে হিসড়ে খুলে ফেলে। এর পর ধর্ষন করার উদ্দেশ্যে শরিরের বিভিন্ন স্পর্শ কাতর স্থানে হাত ও চুমু দিতে থাকে। লায়লা ধর্ষণ করতে না দিলে আসামি আরিফ তাকে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি ও লাথি মারতে শুরু করে। এক পর্যায়ে লায়লা বেগম মুখ খুলে চিৎকার দিতে সক্ষম হলে আশেপাশের মানুষ আসার ভয়ে ধর্ষন চেষ্টা কারি আরিফ পালিয়ে যায়। পরে ওই গৃহবধূ আসামির মা ও স্ত্রী সুমী বেগমকে জানালে তারা জানাজানি করতে নিষেধ করে। লায়লা বেগম তার স্বামী সহ আত্মীয় স্বজনদের জানিয়ে প্রথমে গোপালগঞ্জ সদর থানায় অভিযোগ করেন। থানা পুলিশের কাছে ন্যায় বিচার না পেয়ে গত ২৭ জুলাই গোপালগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে ৯(৪) (খ)/১০ ধারায় মামলা করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তাকে তদন্তের নির্দেশ দেন

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 Ammar Plus P news Channel
Theme Customized By Shakil IT Park
error: Content is protected !!