1. admin@ammarpluspnewschannel.com : admin :
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশিয়ানীর পোনা আরাবিয়া মাদ্রাসার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে পূণর্মিলনী ও ইসলামী মহা সম্মেলন ৭ বছর পর কাশিয়ানী আ.লীগের সম্মেলন, নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ গোপালগঞ্জে কাশিয়ানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক ইউপি সদস্য নিহত কাশিয়ানীর সাজাইলে ইউনিয়নে লাভলু মৃধার আলোচনা সভা জাতীয় পার্টির রাজনীতিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে থামানো যাবেনা – মিন্টু গোপালগঞ্জে সাংবাদিক সংগঠন রিপোর্টার্স ফোরামের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন কাশিয়ানীতে মুক্তিযোদ্ধা বাবা ও ছেলেকে মারধর সেতুর অভাবে চরম দুর্ভোগে ১০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ইডেনে তিশার সঙ্গে ছবি তুলতে শিক্ষার্থীদের ভিড় এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের অসীমের শুভেচ্ছা

জাতীয় পার্টি ছাড়া কোন দল দেশের মানুষের কষ্ট বোঝেনা – ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ

  • প্রকাশিত : শনিবার, ৫ নভেম্বর, ২০২২

 

অনলাইন ডেস্কঃ

জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেছেন, বিএনপি শুধু আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়। আর আওয়ামীলীগ চায় বিএনপি যেন রাষ্ট্র ক্ষমতায় যেতে না পারে। কিন্ত দুঃখের বিষয় হচ্ছে দুটি দলই দেশের মানুষের কথা ভাবছে না। জাতীয় পার্টি ছাড়া কোন দল দেশের মানুষের কষ্ট বোঝেনা। তিনি বলেন, দেশের মানুষ মারাত্মক কষ্টে আছেন। আয় দিয়ে সংসার চালাতে পারছেন না সাধারণ মানুষ। দেশের খেটে খাওয়া মানুষ বুঝতে পারছে কষ্ট কত অসহ্য।

আজ দুপুরে ইনস্টিটিউশন এর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ একথা বলেন। সম্মেলনে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এর উপদেষ্টা ও দেশবরেণ্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শেরীফা কাদের এমপিকে জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির সভাপতি এবং বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক আলাউদ্দিন আহমেদকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়েছে।

জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির আহবায়ক শেরীফা কাদের এমপি’র সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব আলাউদ্দিন আহমেদ এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আরো বলেন, দেশ একটি ক্রান্তিকাল অতিক্রম করছে। করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব আমাদের দেশেও পড়েছে। মানুষের কষ্ট দেখে সরকারের কোন উদ্যোগ আছে বলে মনে হচ্ছে না। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বিশ্বের সকল দেশেই জ্বালানি তেল ও নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে। তাই আমাদের দেশেও বেড়েছে। তিনি বলেন, সকল দেশই মানুষের কষ্ট দূর করতে নগদ অর্থ সহ বিভিন্ন সহায়তা দিচ্ছে, কিন্তু আমাদের দেশে তো কাউকে সহায়তা দেয়া হচ্ছে না।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যারিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আরো বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিলো, ৪৮ থেকে বেড়ে আমাদের রিজার্ভ ৫০ বিলিয়নে দাঁড়াবে। কিন্ত এখন দেশের রিজার্ভ ২৭ বিলিয়নে নেমেছে। আবার সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, দুর্ভিক্ষ আসতে পারে। কিন্ত দুর্ভিক্ষ মোকাবিলায় সরকারের দৃশ্যমান কোন উদ্যোগ নেই। বিদেশ থেকে কেন ডলার আসছেনা? এটি খতিয়ে দেখার যেনো কেউ নেই। দেশের টাকা বাইরে পাচার হয়ে যাচ্ছে, কোন প্রতিকার নেই। ডলারের দাম বেড়ে যাচ্ছে, কোন উদ্যোগ নেই।
এ সময় ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ আরো বলেন, ৩২ বছরেও রাষ্ট্র ক্ষমতার বাইরে থেকে জাতীয় পার্টি দেশের রাজনীতির নিয়ামক শক্তি। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ এর উন্নয়ন আর সুশাসন সাধারণ মানুষ এখনো মনে রেখেছেন। দেশের মানুষ আবারো জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায়। জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টি সহ সকল অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, জাতীয় পার্টিকে আরো শক্তিশালী করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

সম্মেলনে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেছেন, দুর্ণীতি, দুঃশাসন এবং লুটপাটের জন্য দেশের মানুষ আর আওয়ামীলীগ ও বিএনপিকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায় না। অর্থনৈতিক সংকটে দেশের মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। তিনি বলেন, মন্ত্রী জানেন না, ক্যাপাসিটি চার্জের নামে ৮৬ হাজার কোটি টাকা লুটপাট হয়েছে। আওয়ামীলীগ ও বিএনপির দুঃশাসনে দেশের মানুষ বিরক্ত। ব্যবসায়ীরা ইচ্ছেমত দ্রব্যমূল্যে বাড়িয়ে দিচ্ছে, বাণিজ্য মন্ত্রী আছে বলে মনে হয় না। বাজার নিয়ন্ত্রণে কোন কর্তৃপক্ষ আছে বলে প্রমাণ হয় না। দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা ও বেকারত্ব নিয়ে সরকারের কোন পরিকল্পনা নেই। গেলো ৩২ বছরে আওয়ামীলীগ ও বিএনপি প্রমাণ করেছে তত্বাবধায়ক সরকার বা দলীয় সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। অনুপাতিক হারে নির্বাচন হলেই, দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব। একটি সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে জাতীয় পার্টি রাষ্ট্র ক্ষমতায় যেতে পারবে।

এসময় জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি বলেন, জাতীয় পার্টি গণমানুষের আস্থা ও ভালোবাসার রাজনৈতিক শক্তি। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ উন্নয়নের যে কীর্তি গড়ছেন তার তুলনা হয় না। দেশের উন্নয়নের ভিত্তি গড়ছেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তাই আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টি হবে দেশ পরিচালনার নিয়ামক শক্তি।

এ সময় জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি বলেছেন ৫২ থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত সাংস্কৃতিক কর্মীরা অনবদ্য ভূমিকা পালন করেছেন। জাতি সত্তার বিকাশে সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই। তিনি বলেন, দেশের মানুষ মনে করে একমাত্র জাতীয় পার্টিই উন্নয়ন ও সুশাসন দিতে পারবে। তাই সাধারণ মানুষ আবারো জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় দেখতে চায়।

এসময় বক্তব্য রাখেন -জাতীয় পাটির সিনিয়র কো- চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি, মহাসচিব মোঃ মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, কো চেয়ারম্যান -সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, এডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ও জাতীয় পার্টির সাংস্কৃতিক পার্টির আহ্বায়ক শেরীফা কাদের এমপি, সদস্য সচিব আলাউদ্দিন আহমেদ, সাংস্কৃতিক পার্টির সদস্য – আব্দুল হান্নান, ওমর ফারুক সুজন , আফসানা ইয়াসমিন।

সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন – জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য – এস এম আব্দুল মান্নান, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, এড. মোঃ রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, নাজমা আক্তার এমপি, আলমগীর সিকদার লোটন, জহিরুল ইসলাম জহির, জহিরুল আলম রুবেল।

উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য – ড.নূরুল আজহার শামীম, মাসরুর মওলা, আনিসুল ইসলাম মন্ডল, মনির আহমদ, হেনা খান পন্নী, প্রকৌশলী ইকবাল হোসেন তাপস, ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান আকাশ।

ভাইস-চেয়ারম্যান- মোঃ আরিফুর রহমান খান, আহসান আদেলুর রহমান এমপি, শফিকুল ইসলাম শফিক, নিগার রানী সুলতানা, নুরুন্নাহার বেগম, এইচ এম শাহরিয়ার আসিফ, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু,মোঃ জসিম উদ্দিন ভূঁইয়া।

যুগ্ম মহাসচিব-গোলাম মোহাম্মদ রাজু, ফখরুল আহসান শাহজাদা, মোঃ বেলাল হোসেন, এড আব্দুল হামিদ ভাসানী, সৈয়দ মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু।

সাংগঠনিক সম্পাদক -মোঃ হেলাল উদ্দিন, মোঃ হুমায়ুন খান, শাহজাহান মানসুর, এনাম জয়নাল আবেদিন, সৈয়দ ইফতেকার আহসান হাসান, মাখন সরকার, কাজী আবুল খায়ের, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য – এম এ রাজ্জাক খান, জহিরুল ইসলাম মিন্ট, আহাদ ইউ চৌধুরী শাহীন, মোঃ গোলাম মোস্তফা, মিজানুর রহমান মিরু।

যুগ্ম সম্পাদক- যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক তিতাস মোস্তফা, হেলাল উদ্দিন, আজহারুল ইসলাম সরকার, আখতার হোসেন দেওয়ান, এম এ সোবহান, সেরনিয়াবাত সেকান্দার আলী, নূরুল হক নুরু, আব্দুস সাত্তার গালীব, মাহমুদ আলম, ডাঃ সেলিমা খান, দ্বিন ইসলাম শেখ, ব্যারিস্টার শাওলীন সারা দিসা।

কেন্দ্রীয় নেতা – আবু সাঈদ স্বপন, মুহিদ হাওলাদার, শফিকুল ইসলাম দুলাল, তাসলিমা আকবর রুনা, মিনি খান , জোনাকি মুন্সি, মন্টি চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার এলাহান উদ্দিন, দীল মোহাম্মদ দিলু, জিয়াউর রহমান বিপুল,এন এম রফিকুল ইসলাম সেলিম, জাহিদ হাসান, মিথিলা রওয়াজা, মোতাহার হোসেন শাহীন, পেয়ারুল হক হিমেল, জহিরুল ইসলাম মিন্টু, চম্পা মন্ডল, মোমেনা বেগম, জাতীয় ছাত্র সমাজের সভাপতি ইব্রাহিম খান জুয়েল, জাতীয় ছাত্রসমাজের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন।

এবং আরও উপস্থিত জাতীয় মহিলা পার্টি, রাঙ্গামাটি জেলা আহ্বায়ক ঝিমি কামাল ত্রিপুড়া ( ঝিমি), ও জেলা জাতীয় পার্টির  সদস্য উজ্জ্বল চাকমা।

আরও উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটি জেলা জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টি আহ্বায়ক সচিব চাকমা,রাঙ্গামাটি জেলা জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টি সদস্য, আনন্দ চাকমা ,বসন্তী চাকমা, প্রিয়াংকা চাকমা।

 

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 Ammar Plus P news Channel
Theme Customized By Shakil IT Park
error: Content is protected !!