1. admin@ammarpluspnewschannel.com : admin :
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কাশিয়ানীর পোনা আরাবিয়া মাদ্রাসার ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে পূণর্মিলনী ও ইসলামী মহা সম্মেলন ৭ বছর পর কাশিয়ানী আ.লীগের সম্মেলন, নেতাকর্মীদের মধ্যে উৎসবের আমেজ গোপালগঞ্জে কাশিয়ানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় সাবেক ইউপি সদস্য নিহত কাশিয়ানীর সাজাইলে ইউনিয়নে লাভলু মৃধার আলোচনা সভা জাতীয় পার্টির রাজনীতিকে আদালতের নিষেধাজ্ঞা দিয়ে থামানো যাবেনা – মিন্টু গোপালগঞ্জে সাংবাদিক সংগঠন রিপোর্টার্স ফোরামের নতুন কার্যালয় উদ্বোধন কাশিয়ানীতে মুক্তিযোদ্ধা বাবা ও ছেলেকে মারধর সেতুর অভাবে চরম দুর্ভোগে ১০ গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ ইডেনে তিশার সঙ্গে ছবি তুলতে শিক্ষার্থীদের ভিড় এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার্থীদের অসীমের শুভেচ্ছা

বাংলাদেশে বন্যাকবলিত এলাকায় এ পর্যন্ত পানিতে ডুবে, বজ্রপাতে এবং সাপের কামড়ে ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে

  • প্রকাশিত : শনিবার, ২৫ জুন, ২০২২

 

অনলাইন ডেস্কঃ

বাংলাদেশে বন্যাকবলিত এলাকায় এ পর্যন্ত পানিতে ডুবে, বজ্রপাতে এবং সাপের কামড়ে ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে।   এরমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ২৬ জন।

শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম এ তথ্য দিয়েছে।

সম্প্রতি দেশের সিলেট বিভাগে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুম বৃহস্পতিবার থেকে বন্যার তথ্য দেওয়া শুরু করেছে। প্রথম দিনের তথ্যে বলা হয়েছিল সিলেট, ময়মনসিংহ ও রংপুর বিভাগে বন্যায় ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। পরদিন ২২ জুন কন্ট্রোল রুম ৪২ জনের মৃত্যুর তথ্য জানায়।

এ ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ১৭ জুন থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত বন্যাকবলিত এলাকায় ৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে। একদিনে ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। বন্যায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে সিলেট বিভাগে। এই বিভাগে এ পর্যন্ত ৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সিলেট বিভাগের চার জেলার মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে সুনামগঞ্জ জেলায়। এই জেলায় এখন পর্যন্ত ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরপর বেশি মৃত্যু হয়েছে সিলেট জেলায়। জেলাটিতে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ বিভাগের হবিগঞ্জ ও মৌলভীবাজার জেলায় মারা গেছে যথাক্রমে ১ ও ৩ জন।

সিলেটের পর বন্যায় বেশি মৃত্যু হয়েছে ময়মনসিংহ বিভাগে। এই বিভাগে মারা গেছে ১৮ জন। এ বিভাগের ময়মনসিংহ, নেত্রকোনা ও জামালপুর জেলায় পাঁচজন করে মারা গেছে। শেরপুর জেলায় মারা গেছে তিনজন। রংপুর বিভাগের কয়েকটি জেলাতেও বন্যা দেখা দিয়েছে। বিভাগের কুড়িগ্রাম জেলায় তিনজন ও লালমনিরহাট জেলায় একজন মারা গেছে বলে কন্ট্রোল রুম জানিয়েছে।

বন্যা উপদ্রুত এলাকায় বেশি মৃত্যু হচ্ছে পানিতে ডুবে। এ পর্যন্ত পানিতে ডুবে ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর বজ্রপাতে ১৪ জন মারা গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, বন্যাকবলিত এলাকায় ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন রোগে ৪ হাজার ৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ৮৯৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়েছেন ৩৭৯ জন। এরমধ্যে সিলেট বিভাগে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৮৬ জন।

বৃষ্টি আর উজানের ঢলে সিলেটের হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েছে। শহর থেকে গ্রামে বন্যায় যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। তবে সিলেটের বিভিন্ন নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। বন্যায় জেলা শহরের সঙ্গে সদর, গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট, জৈন্তাপুর, কোম্পানীগঞ্জ ও জকিগঞ্জ উপজেলার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। বিদ্যুৎ, মোবাইল নেটওয়ার্কসহ সারা দেশের সঙ্গে যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বন্যাকবলিত উপজেলার বাসিন্দারা

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2021 Ammar Plus P news Channel
Theme Customized By Shakil IT Park
error: Content is protected !!